তাইজুলের ৬ উইকেট

বিসিএলের ষষ্ঠ ও শেষ রাউন্ডের দ্বিতীয় দিনের খেলা শেষে পূর্বাঞ্চলের সংগ্রহ বিনা উইকেটে ২ রান। রনি তালুকদার ও ইমরুল কায়েস ১ রানে ব্যাট করছেন। প্রথম ইনিংসে ২০১ রানের লিড পাওয়া দলটি এগিয়ে আছে ২০৩ রানে।

সিলেট আন্তর্জাতিক ক্রিকেট স্টেডিয়ামে মঙ্গলবার ৮ উইকেটে ৩৮০ রানে ব্যাট করতে নেমে মাহমুদুল ও আবু জায়েদের ব্যাটে এগিয়ে যায় পূর্বাঞ্চল। সেঞ্চুরির আশা জাগানো মাহমুদুলকে বোল্ড করে ৪৬ রানের জুটি ভাঙেন তাসকিন আহমেদ। তরুণ এই পেসার পরের বলে ফিরিয়ে দেন সৈয়দ খালেদ আহমেদকে।

১৩৩ বলে খেলা অফ স্পিনিং অলরাউন্ডার মাহমুদুলের ৯৪ রানের ইনিংসটি গড়া ১১টি চারে।

৯৬ রানে ৪ উইকেট নেন মধ্যাঞ্চলের পেসার তাসকিন।

জবাব দিতে নেমে মধ্যাঞ্চলের প্রথম সাত ব্যাটসম্যানের ছয় জনই পৌঁছান দুই অঙ্কে। তাদের কেউই বড় করতে পারেননি নিজের ইনিংস। পঞ্চাশ পর্যন্ত যান কেবল পিনাক ঘোষ ও মোসাদ্দেক হোসেন। ওপেনার পিনাক ৭ চারে করেন ৫১। মিডল অর্ডার ব্যাটসম্যান মোসাদ্দেক চারটি চার ও তিনটি ছক্কায় করেন ৫৭ রান।

দলটির পঞ্চাশ ছোঁয়া জুটি মাত্র একটি। ষষ্ঠ উইকেটে জাকের আলীর সঙ্গে মোসাদ্দেক গড়েন ঠিক ৫০ রানের জুটি। এই জুটি ভাঙার পর বেশিদূর এগোয়নি মধ্যাঞ্চলের ইনিংস। তা্‌ইজুলের স্পিনে দলটি শেষ ৫ উইকেট হরায় মাত্র ৩১ রানে।

তাইজুল ৬ উইকেট নেন ৯২ রানে। অফ স্পিনার নাঈম হাসান ৪৪ রানে নেন দুটি।

সংক্ষিপ্ত স্কোর:

পূর্বাঞ্চল ১ম ইনিংস: (আগের দিন শেষে ৩৮০/৮) ৮৮.৫ ওভারে ৪২৫ (মাহমুদুল ৯৪, আবু জায়েদ ১৬*, খালেদ ০; তাসকিন ৪/৯৬, শাহাদাত ০/১৭, আবু হায়দার ২/৮৫, মোসাদ্দেক ২/৯৭, মোশাররফ ২/৯১, শান্ত ০/২২, সাইফ ০/১১)

মধ্যাঞ্চল ১ম ইনিংস: ৭২.১ ওভারে ২২৪ (সাইফ ২২, পিনাক ৫১, শান্ত ৩, মজিদ ২৪, মার্শাল ১৫, মোসাদ্দেক ৫৭, জাকের ২৪, মোশাররফ ৬, আবু হায়দার ৬, তাসকিন ৯, শাহাদাত ০*; আবু জায়েদ ১/৪৭, তাইজুল ৬/৯২, নাঈম ২/৪৪, খালেদ ১/৩৪)

পূর্বাঞ্চল ২য় ইনিংস: ১ ওভারে ২/০ (রনি ১*, ইমরুল ১*; তাসকিন ০/২)বিসিএলের ষষ্ঠ ও শেষ রাউন্ডের দ্বিতীয় দিনের খেলা শেষে পূর্বাঞ্চলের সংগ্রহ বিনা উইকেটে ২ রান। রনি তালুকদার ও ইমরুল কায়েস ১ রানে ব্যাট করছেন। প্রথম ইনিংসে ২০১ রানের লিড পাওয়া দলটি এগিয়ে আছে ২০৩ রানে।

সিলেট আন্তর্জাতিক ক্রিকেট স্টেডিয়ামে মঙ্গলবার ৮ উইকেটে ৩৮০ রানে ব্যাট করতে নেমে মাহমুদুল ও আবু জায়েদের ব্যাটে এগিয়ে যায় পূর্বাঞ্চল। সেঞ্চুরির আশা জাগানো মাহমুদুলকে বোল্ড করে ৪৬ রানের জুটি ভাঙেন তাসকিন আহমেদ। তরুণ এই পেসার পরের বলে ফিরিয়ে দেন সৈয়দ খালেদ আহমেদকে।

১৩৩ বলে খেলা অফ স্পিনিং অলরাউন্ডার মাহমুদুলের ৯৪ রানের ইনিংসটি গড়া ১১টি চারে।

৯৬ রানে ৪ উইকেট নেন মধ্যাঞ্চলের পেসার তাসকিন।

জবাব দিতে নেমে মধ্যাঞ্চলের প্রথম সাত ব্যাটসম্যানের ছয় জনই পৌঁছান দুই অঙ্কে। তাদের কেউই বড় করতে পারেননি নিজের ইনিংস। পঞ্চাশ পর্যন্ত যান কেবল পিনাক ঘোষ ও মোসাদ্দেক হোসেন। ওপেনার পিনাক ৭ চারে করেন ৫১। মিডল অর্ডার ব্যাটসম্যান মোসাদ্দেক চারটি চার ও তিনটি ছক্কায় করেন ৫৭ রান।

দলটির পঞ্চাশ ছোঁয়া জুটি মাত্র একটি। ষষ্ঠ উইকেটে জাকের আলীর সঙ্গে মোসাদ্দেক গড়েন ঠিক ৫০ রানের জুটি। এই জুটি ভাঙার পর বেশিদূর এগোয়নি মধ্যাঞ্চলের ইনিংস। তা্‌ইজুলের স্পিনে দলটি শেষ ৫ উইকেট হরায় মাত্র ৩১ রানে।

তাইজুল ৬ উইকেট নেন ৯২ রানে। অফ স্পিনার নাঈম হাসান ৪৪ রানে নেন দুটি।

সংক্ষিপ্ত স্কোর:

পূর্বাঞ্চল ১ম ইনিংস: (আগের দিন শেষে ৩৮০/৮) ৮৮.৫ ওভারে ৪২৫ (মাহমুদুল ৯৪, আবু জায়েদ ১৬*, খালেদ ০; তাসকিন ৪/৯৬, শাহাদাত ০/১৭, আবু হায়দার ২/৮৫, মোসাদ্দেক ২/৯৭, মোশাররফ ২/৯১, শান্ত ০/২২, সাইফ ০/১১)

মধ্যাঞ্চল ১ম ইনিংস: ৭২.১ ওভারে ২২৪ (সাইফ ২২, পিনাক ৫১, শান্ত ৩, মজিদ ২৪, মার্শাল ১৫, মোসাদ্দেক ৫৭, জাকের ২৪, মোশাররফ ৬, আবু হায়দার ৬, তাসকিন ৯, শাহাদাত ০*; আবু জায়েদ ১/৪৭, তাইজুল ৬/৯২, নাঈম ২/৪৪, খালেদ ১/৩৪)

পূর্বাঞ্চল ২য় ইনিংস: ১ ওভারে ২/০ (রনি ১*, ইমরুল ১*; তাসকিন ০/২)বিসিএলের ষষ্ঠ ও শেষ রাউন্ডের দ্বিতীয় দিনের খেলা শেষে পূর্বাঞ্চলের সংগ্রহ বিনা উইকেটে ২ রান। রনি তালুকদার ও ইমরুল কায়েস ১ রানে ব্যাট করছেন। প্রথম ইনিংসে ২০১ রানের লিড পাওয়া দলটি এগিয়ে আছে ২০৩ রানে।

সিলেট আন্তর্জাতিক ক্রিকেট স্টেডিয়ামে মঙ্গলবার ৮ উইকেটে ৩৮০ রানে ব্যাট করতে নেমে মাহমুদুল ও আবু জায়েদের ব্যাটে এগিয়ে যায় পূর্বাঞ্চল। সেঞ্চুরির আশা জাগানো মাহমুদুলকে বোল্ড করে ৪৬ রানের জুটি ভাঙেন তাসকিন আহমেদ। তরুণ এই পেসার পরের বলে ফিরিয়ে দেন সৈয়দ খালেদ আহমেদকে।

১৩৩ বলে খেলা অফ স্পিনিং অলরাউন্ডার মাহমুদুলের ৯৪ রানের ইনিংসটি গড়া ১১টি চারে।

৯৬ রানে ৪ উইকেট নেন মধ্যাঞ্চলের পেসার তাসকিন।

জবাব দিতে নেমে মধ্যাঞ্চলের প্রথম সাত ব্যাটসম্যানের ছয় জনই পৌঁছান দুই অঙ্কে। তাদের কেউই বড় করতে পারেননি নিজের ইনিংস। পঞ্চাশ পর্যন্ত যান কেবল পিনাক ঘোষ ও মোসাদ্দেক হোসেন। ওপেনার পিনাক ৭ চারে করেন ৫১। মিডল অর্ডার ব্যাটসম্যান মোসাদ্দেক চারটি চার ও তিনটি ছক্কায় করেন ৫৭ রান।

দলটির পঞ্চাশ ছোঁয়া জুটি মাত্র একটি। ষষ্ঠ উইকেটে জাকের আলীর সঙ্গে মোসাদ্দেক গড়েন ঠিক ৫০ রানের জুটি। এই জুটি ভাঙার পর বেশিদূর এগোয়নি মধ্যাঞ্চলের ইনিংস। তা্‌ইজুলের স্পিনে দলটি শেষ ৫ উইকেট হরায় মাত্র ৩১ রানে।

তাইজুল ৬ উইকেট নেন ৯২ রানে। অফ স্পিনার নাঈম হাসান ৪৪ রানে নেন দুটি।

সংক্ষিপ্ত স্কোর:

পূর্বাঞ্চল ১ম ইনিংস: (আগের দিন শেষে ৩৮০/৮) ৮৮.৫ ওভারে ৪২৫ (মাহমুদুল ৯৪, আবু জায়েদ ১৬*, খালেদ ০; তাসকিন ৪/৯৬, শাহাদাত ০/১৭, আবু হায়দার ২/৮৫, মোসাদ্দেক ২/৯৭, মোশাররফ ২/৯১, শান্ত ০/২২, সাইফ ০/১১)

মধ্যাঞ্চল ১ম ইনিংস: ৭২.১ ওভারে ২২৪ (সাইফ ২২, পিনাক ৫১, শান্ত ৩, মজিদ ২৪, মার্শাল ১৫, মোসাদ্দেক ৫৭, জাকের ২৪, মোশাররফ ৬, আবু হায়দার ৬, তাসকিন ৯, শাহাদাত ০*; আবু জায়েদ ১/৪৭, তাইজুল ৬/৯২, নাঈম ২/৪৪, খালেদ ১/৩৪)

পূর্বাঞ্চল ২য় ইনিংস: ১ ওভারে ২/০ (রনি ১*, ইমরুল ১*; তাসকিন ০/২)বিসিএলের ষষ্ঠ ও শেষ রাউন্ডের দ্বিতীয় দিনের খেলা শেষে পূর্বাঞ্চলের সংগ্রহ বিনা উইকেটে ২ রান। রনি তালুকদার ও ইমরুল কায়েস ১ রানে ব্যাট করছেন। প্রথম ইনিংসে ২০১ রানের লিড পাওয়া দলটি এগিয়ে আছে ২০৩ রানে।

সিলেট আন্তর্জাতিক ক্রিকেট স্টেডিয়ামে মঙ্গলবার ৮ উইকেটে ৩৮০ রানে ব্যাট করতে নেমে মাহমুদুল ও আবু জায়েদের ব্যাটে এগিয়ে যায় পূর্বাঞ্চল। সেঞ্চুরির আশা জাগানো মাহমুদুলকে বোল্ড করে ৪৬ রানের জুটি ভাঙেন তাসকিন আহমেদ। তরুণ এই পেসার পরের বলে ফিরিয়ে দেন সৈয়দ খালেদ আহমেদকে।

১৩৩ বলে খেলা অফ স্পিনিং অলরাউন্ডার মাহমুদুলের ৯৪ রানের ইনিংসটি গড়া ১১টি চারে।

৯৬ রানে ৪ উইকেট নেন মধ্যাঞ্চলের পেসার তাসকিন।

জবাব দিতে নেমে মধ্যাঞ্চলের প্রথম সাত ব্যাটসম্যানের ছয় জনই পৌঁছান দুই অঙ্কে। তাদের কেউই বড় করতে পারেননি নিজের ইনিংস। পঞ্চাশ পর্যন্ত যান কেবল পিনাক ঘোষ ও মোসাদ্দেক হোসেন। ওপেনার পিনাক ৭ চারে করেন ৫১। মিডল অর্ডার ব্যাটসম্যান মোসাদ্দেক চারটি চার ও তিনটি ছক্কায় করেন ৫৭ রান।

দলটির পঞ্চাশ ছোঁয়া জুটি মাত্র একটি। ষষ্ঠ উইকেটে জাকের আলীর সঙ্গে মোসাদ্দেক গড়েন ঠিক ৫০ রানের জুটি। এই জুটি ভাঙার পর বেশিদূর এগোয়নি মধ্যাঞ্চলের ইনিংস। তা্‌ইজুলের স্পিনে দলটি শেষ ৫ উইকেট হরায় মাত্র ৩১ রানে।

তাইজুল ৬ উইকেট নেন ৯২ রানে। অফ স্পিনার নাঈম হাসান ৪৪ রানে নেন দুটি।

সংক্ষিপ্ত স্কোর:

পূর্বাঞ্চল ১ম ইনিংস: (আগের দিন শেষে ৩৮০/৮) ৮৮.৫ ওভারে ৪২৫ (মাহমুদুল ৯৪, আবু জায়েদ ১৬*, খালেদ ০; তাসকিন ৪/৯৬, শাহাদাত ০/১৭, আবু হায়দার ২/৮৫, মোসাদ্দেক ২/৯৭, মোশাররফ ২/৯১, শান্ত ০/২২, সাইফ ০/১১)

মধ্যাঞ্চল ১ম ইনিংস: ৭২.১ ওভারে ২২৪ (সাইফ ২২, পিনাক ৫১, শান্ত ৩, মজিদ ২৪, মার্শাল ১৫, মোসাদ্দেক ৫৭, জাকের ২৪, মোশাররফ ৬, আবু হায়দার ৬, তাসকিন ৯, শাহাদাত ০*; আবু জায়েদ ১/৪৭, তাইজুল ৬/৯২, নাঈম ২/৪৪, খালেদ ১/৩৪)

পূর্বাঞ্চল ২য় ইনিংস: ১ ওভারে ২/০ (রনি ১*, ইমরুল ১*; তাসকিন ০/২)

You May Also Like

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *