পদ্মা সেতুর ১২তম স্প্যান স্থাপন দৃশ্যমান হলো

ঢাকা অফিস ॥ পদ্মা সেতুর ১২তম স্প্যান স্থাপনের মধ্য দিয়ে দৃশ্যমান হয়েছে সেতুর ১৮শ’ মিটার। গতকাল সোমবার দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে ‘৫-এফ’ নম্বর স্প্যানটি অস্থায়ীভাবে মাওয়া ও জাজিরা প্রান্তের মাঝামাঝি ২০ ও ২১ নম্বর পিয়ারে বসানো হয়। এর আগে পদ্মা সেতুর ১২তম স্প্যান পিয়ারের ওপর বসানোর জন্য আজ মাওয়ার কুমারভোগ কনস্ট্রাকশন ইয়ার্ড থেকে পিয়ারের কাছে নেয়া হয়। সকাল ৯টা ২০ মিনিটে রওনা হয়ে স্প্যানটি মাত্র ৪০ মিনিটেই অর্থাৎ ১০টায় পৌছে যায় গন্তব্যে। স্প্যানটি পিয়ারের সামনে পজিশনিং করা হয়। এরপরই দুপুরে পিয়ারের ওপর স্প্যানটিকে স্থাপন করা হয়। স্প্যানটি ৩০-৩১ নম্বর নম্বর পিলারের জন্য তৈরি। কিন্তু পিয়ার দুটি এখনও সম্পন্ন না হওয়ায় এবং কনস্ট্রাকশন ইয়ার্ডে স্প্যান রাখার জায়গা সংকুলান না হওয়ায় এটি অস্থায়ীভাবে ২০-২১ নম্বর পিয়ারের ওপর বসানো হয়। ৩০-৩১ নম্বর পিয়ার সম্পন্ন হওয়ার পর এটি সরিয়ে নেওয়া হবে। সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রণালয়ের সেতু বিভাগের দায়িত্বশীল প্রকৌশলীরা জানান, ‘৫-এফ’ নম্বর স্প্যানটি গত শুক্রবার বসানোর পরিকল্পনা থাকলেও ঘূর্ণিঝড় ফণীর কারণে তা বাতিল করা হয়। সোমবার তাই কনস্ট্রাকশন ইয়ার্ড থেকে ধূসর রংয়ের ১৫০ মিটার দৈর্ঘ্যরে ও ৩ হাজার ১৪০ টন ওজনের স্প্যানটিকে বহন করে নিয়ে যায় ৩ হাজার ৬০০ টন ধারণ ক্ষমতার ‘তিয়ান ই’ নামের ভাসমান ক্রেনবাহী জাহাজ। সেতু বিভাগের উপ-সহকারী প্রকৌশলী হুমায়ুন কবির জানান, স্প্যানটি বসানোর মধ্য দিয়ে পদ্মা সেতুর দৃশ্যমান হয়েছে ১৮০০ মিটার। পদ্মা সেতুর প্রকৌশল সূত্রে জানা যায়, পদ্মা সেতুতে ২৯৪টি পাইলের মধ্যে ২৬২টি পাইল ড্রাইভ স¤পন্ন হয়েছে। বাকি ৩২টি পাইল ড্রাইভের কাজ চলছে। ৪২টি পিয়ারের মধ্যে কাজ শেষ হয়েছে ২৫টি পিয়ারের। বাকি ১৭টি পিয়ারের কাজও চলছে। ৬ দশমিক ১৫ কিলোমিটার দীর্ঘ সেতুটিতে মোট ৪১টি স্প্যান বসবে। এরই মধ্যে ১১টি স্প্যান বসানো হয়েছে। এর মধ্যে মাওয়া প্রান্তেও একটি ৬ ও ৭ নম্বর পিয়ারের স্প্যানটি পাশের ৪ ও ৫ নম্বর পিয়ার বসানো হয়েছে। এই দু’পিয়ারের কাজ শেষ হলেই এটি সরিয়ে আনা হবে। এছাড়াও পদ্মা সেতুর ১৩ তম স্প্যানটি আগামী ১০মে বসানোর কথা জানিয়েছেন প্রকৌশলীরা। পদ্মা সেতু প্রকল্পের একটি সূত্র জানায়, এ সেতুর এ পর্যন্ত স্থাপন করা ১২টি স্প্যানের মধ্যে বাকী ১১টির অবস্থান হচ্ছে শরীয়তপুরের জাজিরায় এখন দশটি পিয়ার (৩৩, ৩৪, ৩৫, ৩৬, ৩৭, ৩৮, ৩৯, ৪০, ৪১ ও ৪২) ৯টি স্প্যান দৃশ্যমান আছে। এছাড়া মাওয়া প্রান্তে দুটি। (১৩, ১৪ ও ৪, ৫) নম্বর পিয়ারে একটি স্থায়ী স্প্যান ও একটি অস্থায়ী স্প্যান বসানো হয়েছে। জাজিরায় স্প্যানগুলোতে রেলওয়ে স্ল্যাব ও রোডওয়ে স্ল্যাব বসানোর কাজ চলছে। সম্পূর্ণ সেতুতে ২ হাজার ৯৩১টি রোডওয়ে স্ল্যাব বসানো হবে। আর রেলওয়ে স্ল্যাব বসানো হবে ২ হাজার ৯৫৯টি। মাওয়া কনস্ট্রাকশন ইয়ার্ডে ২২টি স্প্যানের মধ্যে ১১টি স্প্যান বসানো হয়েছে। ২০১৪ সালের ডিসেম্বরে মূল পদ্মাসেতুর নির্মাণ কাজ শুরু হয়। সেতু নির্মাণে ব্যয় হচ্ছে ৩৩ হাজার কোটি টাকা। দু’পাড়ে সংযোগসড়কসহ সেতুটি প্রায় ৯ কিলোমিটার দীর্ঘ। এ বহুমুখী এই সেতুর মূল আকৃতি হবে দোতলা। কংক্রিট ও স্টিল দিয়ে নির্মিত হচ্ছে এ সেতুর কাঠামো।

You May Also Like

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *